রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী নাট্যোৎসব ২০১৮ শুরু

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ১ এপ্রিল ২০১৮ :
আজ রবিবার থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী নাট্যোৎসব ২০১৮’ শুরু হয়েছে। এদিন বিকেল ৫টায় সৈয়দ ইসমাঈল হোসেন সিরাজীভবন চত্বরে এক অনুষ্ঠানে সপ্তাহব্যাপী এ উৎসবের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর     এম আব্দুস সোবহান। সেখানে বাংলাদেশ ও ভারতের জাতীয় পতাকাসহ নাট্যোৎসবে অংশগ্রহণকারী বিশ্ববিদ্যালয় ও দলসমূহের পতাকা উত্তোলন করা হয় এবং উভয় দেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার শ্রী হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক, উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, বিশিষ্ট নাট্যজন প্রফেসর মলয় ভৌমিক ও রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর সোমনাথ সিন্হা।
উদ্বোধনের পর কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় ‘মিলি মৈত্রী বন্ধনে গড়ি সংস্কৃতির সেতু…’ শীর্ষক প্রতিপাদ্য নিয়ে এই নাট্যোৎসবের আলোচনা। এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নাট্যকলা বিভাগের সভাপতি ড. আতাউর রহমান এবং উৎসবকথন উপস্থাপন করেন নাট্যোৎসবের আহ্বায়ক ড. আরিফ হায়দার। অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দকে উত্তরীয় পরিয়ে দিয়ে স্মারক ক্রেস্ট উপহার দেয়া হয়। সেখানে অন্যান্যের মধ্যে রাজশাহীতে নিযুক্ত ভারতের সহকারী হাই কমিশনার অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায়, খ্যাতনামা নৃত্যশিল্পী বজলার রহমান বাদল, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান, শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর মো. নজরুল ইসলামসহ বিশিষ্ট শিক্ষক, কর্মকর্তা ও সাংস্কৃতিক কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষক ড. মো. আমির জামান ও সুমনা সরকার।
অনুষ্ঠানের আলোচনায় উপাচার্য বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত এই দুই দেশ ভাষা, শিল্প-সাহিত্য ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে অভিন্ন গৌরবময় ঐতিহ্যের উত্তরাধিকারী। এই নাট্যোৎসব তারই প্রতীক। শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতির ক্ষেত্রে পারস্পরিক আদান-প্রদান দুই দেশের মধ্যে স্থায়ীত্বশীল মৈত্রীবন্ধন গড়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
উপাচার্য তাঁর বক্তৃতায় আরো বলেন, নাট্যকলা বিভাগের পঠন-পাঠন ও গবেষণা কর্মকা-ের অন্যতম স্বাক্ষর ‘বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী নাট্যোৎসব ২০১৮’। এই আয়োজনের ঈপ্সিত সাফল্যের মধ্যেই নিহিত আছে ‘মিলি মৈত্রীবন্ধনে গড়ি সংস্কৃতির সেতু …’ শীর্ষক প্রতিপাদ্য।
ভারতের হাইকমিশনার তাঁর বক্তৃতায় বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিদ্যমান মৈত্রীর বন্ধন গভীরতর করার জন্য প্রয়োজন দুই দেশের জনগণের মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ বাড়ানো। সাংস্কৃতিক বিনিময় সে লক্ষ্যে এক অন্যতম বাহন। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগের এই আয়োজন দুটি দেশের সংস্কৃতির মেলবন্ধনের প্রতীক হয়ে থাকলো বলে তিনি উল্লেখ করেন।
উৎসবের প্রথম দিনে আজ রবিবার ভারতের শ্রুতি পারফরমেন্স ট্রুপের ‘জয় জয়ভানু জয় জয়দেব’ মঞ্চায়িত হয়।
সপ্তাহব্যাপী এই নাট্যোৎসবে আয়োজক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগসহ বাংলাদেশ-ভারতের ১৩টি নাট্যদল অংশ নিচ্ছে। এতে মোট ১৩টি নাটক মঞ্চায়িত হবে বলে নির্ধারিত আছে। নাটকগুলি প্রতিদিন বিকেল ৪টা থেকে শহীদ সুখরঞ্জন সমাদ্দার ছাত্র-শিক্ষক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র মিলনায়তন ও সন্ধ্যা ৬:৪৫ মিনিট থেকে কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে মঞ্চস্থ হবে।


All rights reserved © ICT Center, Unversity of Rajshahi 2016.
webmaster@ru.ac.bd