রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় : গণহত্যা দিবস পালিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ২৫ মার্চ ২০১৯:
আজ ২৫ মার্চ গণহত্যা দিবস। একাত্তরের ২৫ মার্চের কাল রাতের গণহত্যা স্মরণে এদিন বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ও হল মসজিদসমূহে বিশেষ মোনাজাত এবং অন্যান্য উপাসনালয়ে প্রার্থনা করা হয়। এদিন বিকেল ৪:৩০ মিনিটে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রশাসনভবন কনফারেন্স রুমে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ পরিবার ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময়, স্মৃতিচারণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই আয়োজনে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম এ বারী অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন। সেখানে অন্যানের মধ্যে ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর লায়লা আরজুমান বানু, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান ও জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এদিন সন্ধ্যা ৬:৪৫ মিনিটে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান, উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা, উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া, কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার প্রফেসর এম এ বারী, ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর লায়লা আরজুমান বানু, জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার ও প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমানসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে প্রদীপ প্রজ্জ্বালন করেন। সেখানে উপাচার্য এক সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় ২৫ মার্চের ভয়াল রাতে যাঁরা শহীদ হন সেই সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে দিনটিকে গণহত্যা দিবস হিসেবে ঘোষণাকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালনে এক অন্যতম পদক্ষেপ বলে উল্লেখ করেন। তিনি এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসেবে ঘোষণার জন্য সরকারের প্রয়াসের প্রতি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সহমত পোষণ করে এই উদ্যোগের প্রতি সকলের সমর্থন কামনা করেন।
দিবসের কর্মসূচিতে আরো ছিলো রাত ৯টা থেকে ১ মিনিট ক্যাম্পাসে ব্ল্যাকআউট।

প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার
প্রশাসক


All rights reserved © ICT Center, Unversity of Rajshahi 2016.
webmaster@ru.ac.bd