রাবিতে প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের সেমিনার

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ২৫ নভেম্বর ২০১৮:
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের উদ্যোগে গতকাল শনিবার ‘বাংলাদেশের বিষ্ময়কর উন্নয়ন অভিযাত্রা এবং আগামীর পথনকশা’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এদিন বিকেল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয় সিনেট ভবনে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্ণর প্রফেসর আতিউর রহমান। সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়া এবং কোষাধ্যক্ষ প্রফেসর এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান আল-আরিফ। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের আহ্বায়ক প্রফেসর এম মজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এই সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইতিহাস বিভাগের প্রফেসর চিত্তরঞ্জন মিশ্র।
সেমিনারে প্রফেসর আতিউর রহমান বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা পরবর্তী অর্থনীতির যাত্রা শুরু করতে হয়েছে শুন্য থেকে, প্রতিকূল প্রকৃতি ও বৈরী বৈশ্বিক রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অস্থির পরিস্থিতিতে দিন বদলের প্রস্তাব নিয়ে বর্তমান সরকারের যাত্রা শুরু হয়। এর অন্যতম কৌশল ছিল ডিজিটাল রূপান্তর; রাজনৈতিক প্রস্তাব ছিল দিন বদলের নীতি ও তার  বাস্তবায়ন; লক্ষ্য ছিল সামাজিক পাটাতনে থাকা মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন। সে লক্ষে প্রণীত কৌশলে অন্যতম ছিল আত্মনির্ভরশীল কিন্তু যৌথ উদ্যোগে আগ্রহী, উচ্চ প্রবৃদ্ধি কিন্তু অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং নিজস্ব সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল কিন্তু প্রযুক্তি ব্যবহারে অত্যন্ত আগ্রহী। সমাজের নিচু স্তরে থাকা মানুষের উন্নয়নে রাজনৈতিক পরিকল্পনাকে সম্পৃক্ত করা। বাংলাদেশ আজ স্বল্পোন্নত থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে শামিল হয়েছে। বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নে গত এক দশক ছিল ব্যতিক্রমী উন্নয়ন চিন্তার। আর্থসামাজিক উন্নয়নকে অগ্রাধিকার দিয়ে নীতি প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে।
সেমিনারে উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান বলেন, বর্তমান সরকারের জনকল্যাণমুখী অর্থনৈতিক নীতির ফলে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের সামনে অন্তর্ভুক্তিমূলক ও টেকসই উন্নয়নের অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে উঠেছে। দিন বদলের যে প্রত্যয় নিয়ে বর্তমান সরকার যাত্রা শুরু করেছিলো তার সবটা জুড়েই ছিলো সে প্রত্যয় বাস্তবায়নের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিকল্পনা। ফলে গত ১০ বছরে আর্থসামাজিক উন্নয়নের প্রতিটি সূচকেই দেশ এগিয়ে গেছে। এসময়ে প্রান্তিক ও মধ্যবিত্ত শ্রেনির উন্নয়নের চালিকা যেমন শিক্ষা, কর্মসংস্থান, উৎপাদনশীল খাতে সম্পৃক্ততা সবক্ষেত্রেই অভূতপূর্ব উন্নতি ঘটেছে। পাশাপাশি দেশে অবকাঠামো উন্নয়ন, সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগসহ উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি, শিল্প উৎপাদন ও রপ্তানি আয় ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে রিজার্ভ সর্বকালের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। এসবই সম্ভব হয়েছে সরকারের অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন নীতির কারণে। দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের স্বার্থেই সরকারের এই নীতিপরিকল্পনার ধারাবাহিকতা অক্ষুণœ রাখা একান্ত প্রয়োজন। সে লক্ষে আমাদের সকলকে সচেতন হতে বলেও উপাচার্য উল্লেখ করেন।
সেমিনার আয়োজন কমিটির আহ্বায়ক অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর মো. আব্দুর রশিদ সরকার সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন।

প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার
প্রশাসক


All rights reserved © ICT Center, Unversity of Rajshahi 2016.
webmaster@ru.ac.bd