রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পারমানবিক বিদ্যুৎশক্তি বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, ১৭ জুলাই ২০১৮:
আজ মঙ্গলবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পারমানবিক বিদ্যুৎশক্তি বিষয়ে এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এদিন সকাল ১০:৩০ মিনিটে সিনেট ভবনে এই সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর এম আব্দুস সোবহান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন উপ-উপাচার্য প্রফেসর আনন্দ কুমার সাহা। পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর মো. গোলাম মত্তুজার সভাপতিত্বে এই সেমিনারে পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ইমেরিটাস অরুন কুমার বসাক ‘বাংলাদেশে নিউক্লীয় বিদ্যুৎশক্তির গুরুত্ব’ শীর্ষক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
সেমিনারে অন্যদের মধ্যে রাশিয়ার উরাল ফেডারেল ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ড. ওলেগ তাসলিকভ It’s my life : the future energy, nuclear nest-doll, working scope for people, বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. শফিকুল ইসলাম ভুইয়া Fuel Cycle and Radioactive Waste Management ও প্রকৌশলী মো. আলী জুলকারনায়েনAn Overview of Nuclear Power and Safety of VVER-1200 Reactor শীর্ষক ৩টি প্রবন্ধসহ মাল্টিমিডিয়ায় ডিসপ্লে উপস্থাপন করেন। প্রবন্ধ উপস্থাপকগণ সেখানে উপস্থিত শিক্ষক, শিক্ষার্থী, বিজ্ঞানী ও গবেষকদের প্রশ্নেরও উত্তর দেন।
অনুষ্ঠানে উপাচার্য তাঁর বক্তৃতায় বলেন, বাংলাদেশে পারমানবিক শক্তি বিশেষ করে পারমানবিক বিদ্যুতের জন্য প্রচেষ্টা এই প্রথম নয়। এর শুরু ১৯৬২ সালে যার ধারাবাহিকতায় স্বাধীনতার পরেও বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী (মরহুম) ড. ওয়াজেদ মিয়ার উদ্যোগে সে প্রচেষ্টা এগিয়ে যায়। বর্তমান সরকার ড. ওয়াজেদ মিয়ার সে উদ্যোগকে রূপদান করতে পূর্বনির্ধারিত রূপপুরে পারমানবিক চুল্লি স্থাপনের কাজ শুরু করে যার ধারাবাহিকতায় গত ১৪ জুলাই তারিখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সেখানে দ্বিতীয় ইউনিটের কাজ উদ্বোধন করেন। এই পারমানবিক চুল্লি স্থাপনের ফলে তুলনামূলকভাবে সস্তা বিদ্যুৎ উৎপাদনের পাশাপাশি দেশে চিকিৎসা ও পরমাণু গবেষণা ক্ষেত্রেও যুগান্তকারী উন্নতি ঘটবে। দীর্ঘদিন থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে নিউক্লীয় পদার্থবিজ্ঞানে পঠন-পাঠন চলছে। এই পরমাণু চুল্লি  চালু হলে সেটিকে ল্যাব হিসেবে ব্যবহার করে নিউক্লীয় প্রকৌশল ও প্রযুক্তিতে আমাদের অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলী বিশ্বমানের প্রশিক্ষণ ও গবেষণা কাজ করতে পারবেন। যা দেশে পরমাণু গবেষণার ক্ষেত্রে এক নতুন বাতায়ন উন্মোচন করবে।
প্রসঙ্গক্রমে উপাচার্য বলেন, বর্তমান সরকার জনকল্যাণে যে নিবেদিত তার অনন্য উদাহরণ এই পরমাণু চুল্লি স্থাপন। এ উন্নয়নে রাশিয়া যে সহযোগিতা প্রদান করছে তার জন্য উপাচার্য সে দেশের সরকারসহ সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানান।
সেমিনারটি সঞ্চালনা করেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর রায়হানা শামস্ ইসলাম।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক প্রফেসর প্রভাষ কুমার কর্মকার, প্রক্টর প্রফেসর মো. লুৎফর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বাংলাদেশ সরকারের পারমানবিক শক্তি তথ্যকেন্দ্র (ICONE)-এর উদ্যোগে পরমাণু বিজ্ঞান সপ্তাহের অংশ হিসেবে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।


All rights reserved © ICT Center, Unversity of Rajshahi 2016.
webmaster@ru.ac.bd